মহামারী করোনা
করোনায় আজ ৬৩ মৃত্যু, শনাক্তেও রেকর্ড অক্সফোর্ডের টিকার শিশুদের ওপর ট্রায়াল স্থগিত অক্সফোর্ডের টিকার শিশুদের ওপর ট্রায়াল স্থগিত এবার ভারতে একদিনে করোনা সংক্রমন ছাড়ালো ১লাখের বেশি দেশজুড়ে লকডাউন চলছে করোনা টিকার ২০ লাখ ডোজ আসছে আজ
মুক্ত ডেস্ক
প্রকাশ : ২৭/১/২০২১ ৩:৪৪:৩০ PM

ঝালকাঠিতে বিএনপি ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর প্রচারনায় বাধা

নলছিটি পৌরসভা নির্বাচনের আর মাত্র ২ দিন বাকি। এখানে বিএনপির মেয়র প্রার্থী শুরু থেকেই পোষ্টার ঝুলিয়ে মাঠে না থাকায় আওয়ামীলীগের মেয়র প্রার্থী মুক্তিযোদ্ধা আবদুল ওয়াহেদ খান নির্বিঘ্নে প্রচার প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে।

কিন্তু স্বতন্ত্র প্রার্থী মাসুদ খান বাছাইয়ের সময় তার মনোনয়ন বাতিল হয়।

এরপর মনোনয়নের বৈধতা পেতে তিনি মামলা জটিলতায় জড়িয়ে পরেন। গত ১ সপ্তাহ আগে মোবাইল প্রতীক নিয়ে শেষ পর্যন্ত সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশনায় মনোনয়ন বৈধ হওয়ায় মাঠে আসতে সক্ষম হন।

তাই শেষ সময়ে নলছিটি পৌর নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থী মাঠে না থাকলেও মাসুদ খান চলে আসায় নির্বাচন পরিস্থিতি একদিকে উত্তপ্ত অন্য দিকে জমে উঠেছে।

গত ২৬ জানুয়ারী কর্মী সমর্থক নিয়ে মাসুদ খান নলছিটিতে গনসংযোগ শুরু করলে বাঁধাগ্রস্থ হওয়ায় ম্যাজিষ্ট্রেট, পুলিশ ও র‌্যাবের সহায়তায় তাকে তার বাস ভবনে পৌছে দেয়া হয়।

এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে নলছিটি পৌর নির্বাচন উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে। এদিকে সরকারী দলীয় মেয়র প্রার্থীর পক্ষে জেলা আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা দিন রাত প্রচার প্রচারনায় অংশ নিচ্ছে।

তফসিল অনুযায়ী তৃতীয় ধাপে আগামী ৩০ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে ঝালকাঠির নলছিটি পৌরসভা নির্বাচন। এই নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন নিয়ে নৌকা প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল ওয়াহেদ খান।

বিএনপি থেকে মনোনয়ন নিয়ে ধানের শীষ প্রতীকে লড়ছেন সাবেক মেয়র মো. মজিবুর রহমান। অপরদিকে আইনি জটিলতা কাটিয়ে আওয়ামীলীগের স্বতন্ত্র প্রার্থী সাবেক মেয়র কেএম মাছুদ খান প্রার্থীতা ফিরে পেয়ে তিনিও মাঠে নেমেছেন।

তিনি তার প্রতিক্রিয়ায় বলেন, আমি নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে মাঠে থাকবো, জনগণ আমার পাশে থাকবেন। নির্বাচনের দিন কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দিয়ে আপনাদের বিজয় ছিনিয়ে আনবেন। আমার প্রচারণায় বাঁধা দেওয়া হলে কাফনের কাপড় পড়ে মাঠে নামবো। কোন বাঁধা ভয় করি না।

যারা আচরণবিধি লঙ্ঘন করছেন, তাদের বিরুদ্ধে রিটার্নিং কর্মকর্তা কোন ব্যবস্থা নেয় না। আমি সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের দাবি জানাচ্ছি। পৌর এলাকায় বহিরাগত সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্যে ঘুরছে, তাদের গ্রেপ্তার করে পরিবেশ শান্তিপূর্ণ করতে হবে।

এছাড়াও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মনোনীত হাতপাখা প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন মাওলানা মো. শাহ জালাল।

বিএনপি প্রার্থী মো. মজিবুর রহমান তার নির্বাচনী প্রচার প্রচারনার বিষয়ে বলেন, নলছিটিেিত নির্বাচনের কোন পরিবেশ নেই। সরকার দলীয় প্রার্থী প্রতিদিন গণসংযোগের নামে হোন্ডা এবং নেতা কর্মীদের নিয়ে মহড়া দিচ্ছে। এতে পৌরবাসী আতঙ্কিত হয়ে নির্বাচনের দিন ভোট কেন্দ্রে যাবেনা বলে আমাকে জানিয়েছে।

সরকার দলীয় প্রার্থীর সমর্থকদের হুমকি ও বাঁধায় আমি ও আমার কর্মীরা এখন এলাকা থেকে বিতারিত। এগুলো প্রশাসন সব কিছুই জানে। তাই কারো কাছে কোন প্রতিকার চেয়ে লাভ নেই।

তিনি আরো জানান, গত ২৬ জানুয়ারী বিএনপি নির্বাহী কমিটির সদস্য জিবা আমিনা খান নলছিটিতে এসে আমাকে নিয়ে গণসংযোগে যোগ দেয়ার কথা ছিল। কিন্তু তাকে ঢাপড়ের বিসিক শিল্প নগরী এলাকা থেকে ফিরে যেতে বাধ্য করা হয়।

এ বিষয়ে জিবা আমিনা খান বলেন, নলছিটি পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী মো. মজিবুর রহমানের পক্ষে প্রচারণায় অংশ নিতে যাচ্ছিলাম।

এসময় জেলা মহিলা দলের সভানেত্রী মতিয়া জুয়েলসহ নেতা কর্মীরা সাথে ছিল।

দুপুরে নলছিটি প্রবেশের পথে ছাত্রলীগ ও যুবলীগের নেতাকর্মীরা আমার গাড়িতে হামলার প্রস্তুতি নেয়। তারা ধাওয়া করলে গাড়ি ফিরিয়ে বাড়িতে চলে আসতে বাধ্য হয়েছি। এ অবস্থায় কোন ভাবেই নলছিটিতে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়।

নলছিটির নির্বাচননের সার্বিক পরিবেশ পরিস্থিতির বিষয়ে জানতে চাইলে আওয়ামী লীগ প্রার্থী মুক্তিযোদ্ধা আবদুল ওয়াহেদ খান বলেন, নলছিটির পৌর নির্বাচনের সার্বিক পরিবেশ ভালো।

এখানে এখন পর্যন্ত কোন সহিংস ঘটনা ঘটেনি। বিএনপি ও সতন্ত্র মেয়র প্রার্থীদের সকল অভিযোগ ভিত্তিহীন। তাদের জনসমর্থন না থাকায় ভোটারদের কাছে না গিয়ে মিথ্যে অভিযোগ করছে।

উল্টো প্রতিপক্ষরা ২৬ জানুয়ারী দিবাগত রাতে তালতলা মোড়ে আমার নির্বাচনী অফিস পুড়িয়ে দিয়েছে। আমি আমার জয়ের ব্যাপারে শতভাগ নিশ্চিত।

নলছিটির তাল তলার মোড়ে সরকার দলীয় সমর্থীত মেয়র প্রার্থীর নির্বাচনী অফিস পুড়িয়ে দেয়ার বিষয়ে থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আলী আহম্মেদ বলেন, বিষয়টি শুনে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত করে আইনানুগ ব্যাবস্থা নেয়া হবে।

পৌর নির্বাচনের সার্বিক বিষয়ে নলছিটি উপজেলা সহকারী রির্টানিং কর্মকর্তা আরিফুর রহমান জানান, গত নির্বাচনের তুলনায় এবারের নির্বাচনে এখন পর্যন্ত কোন সহিংসতা হয়নি। কাউন্সিলর প্রার্থী দুই জনের কাছ থেকে মৌখিক দুটি অভিযোগ পেলেও মেয়র প্রার্থীদের কাছ থেকে কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি।

আইনশৃংখলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আছে বলেই কোথাও কোন সহিংসতার খবর আসেনি। তিনি জানান, নির্বাচনে র‌্যাবের ৩টি টিম মাঠে থাকবে এবং ৩ জন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট সার্বক্ষনিক আচরণবিধি পর্যবেক্ষণ করছে। 

ঝালকাঠি পুলিশ সুপার ফাতিহা ইয়াসমিন বলেন, নির্বাচন শুরুর আগ থেকে পরবর্তী সময় পর্যন্ত এলাকায় সহিংসতা এড়াতে পুলিশ সজাগ দৃষ্টি রাখবে। ভোট কেন্দ্রে নির্ধারিত ফোর্স ছাড়াও পৌর এলাকায় পুলিশের একাধিক মোবাইল টিম থাকবে। 

উল্ল্যেখ্য আগামী ৩০ জানুয়ারী নলছিটি পৌরসভা নির্বাচনের ভোট গ্রহনের দিন ধার্য করেছে নির্বাচন কমিশন। এতে মোট ভোটার সংখ্যা ২৪ হাজার ১০১ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার রয়েছেন ১২০৫১ এবং নারী ভোটার ১২০৫০ জন। মোট ভোট কেন্দ্র ১৩ টি। ১৩টি কেন্দ্রের ২৬টি বুথে ভোট গ্রহন করা হবে।



সপ্তাহের সর্বাধিক পঠিত খবর সমূহ
অন্যান্য খবর