Login





Register

muktoprovat
English Edition
Image

এবারের ঈদুল ফিতরের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে নববর্ষ এবং সপ্তাহিক ছুটি। ফলে টানা পাঁচদিনের ছুটির ফাঁদে পড়েছে দেশ। টানা বন্ধে চাকরিজীবীদের মাঝে খুশির আমেজ বিরাজ করলেও কিছুটা হতাশ কক্সবাজারের পর্যটন সংশ্লিষ্টরা।

কারণ, পাঁচদিনের ছুটির প্রথম দু’দিন অর্থাৎ ঈদ ও ঈদের আগের দিন এক প্রকার পর্যটক শূন্যই ছিল কক্সবাজার। সপ্তাহিক ছুটিতে আগে থেকেই শুক্রবার ও শনিবার বুকিং থাকতো বেশ।

তবে সেই হতাশা কাটছে পর্যটন সংশ্লিষ্টদের। গরম উপেক্ষা করে শুক্রবার (১২ এপ্রিল) বিপুল সংখ্যক পর্যটক সমাগম ঘটেছে কক্সবাজারে। শনিবারও এ ধারা অব্যাহত থাকবে বলে আশা করছেন পর্যটন সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীদের।

অতীতে পহেলা বৈশাখ পর্যন্ত পর্যটন মৌসুম সচল থাকতো। তখনো পর্যটকে ভরে থাকতো কক্সবাজার। তবে এবারের বৈশাখ, চৈত্রের খরতাপে প্রকৃতিকে জ্বালিয়ে ছারখার করছে।

এপ্রিলের রুদ্রমূর্তি ধারণ করা সময়ে শুরু হওয়া পহেলা বৈশাখ বাংলা নববর্ষ বরণে পূর্বের ধারায় এবারও তিনদিনের বৈশাখী মেলার আয়োজন করছে পর্যটন জোনের তারকা হোটেল ওশান প্যারাডাইস লিমিটেড কর্তৃপক্ষ।

পার্কিং এলাকায় নাগরদোলা, লবিতে বৈশাখ ঐতিহ্যের মেলার নানান স্টল বসছে। বৈশাখী সাজে সাজানো হয়েছে হোটেলে পার্কিং এলাকাসহ চারপাশ। বিনোদনে থাকছে জলের গান শিল্পী গোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসহ নানা আয়োজনও।

কক্সবাজার হোটেল-গেস্ট হাউস মালিক সমিতির সভাপতি আবুল কাশেম সিকদার বলেন, 'এবারের রমজানের মাঝামাঝি সময় হতেই তীব্র তাপপ্রবাহ চলছে। ফলে অন্য সময়ের রমজানের চেয়ে পর্যটক শূন্যতায় ছিল কক্সবাজার।

আর ঈদের প্রথম দিনেও তেমন কোনো জনসমাগম ছিল না বলা যায়। ফলে হোটেল-মোটেল, রেস্তোরাঁ ও পর্যটননির্ভর ব্যবসা-বাণিজ্যে অচলাবস্থা ছিল। কিন্তু শুক্রবার সকাল থেকে পর্যটন এলাকায় জনসমাগম বেড়েছে। গরম উপেক্ষা করেই বেলাভূমি লোকারণ্য হয়ে আছে। এ ধারা আরও দু’দিন থাকবে বলে আশা করছি।’

ফেনীর ছাগলনাইয়া থেকে পরিবার নিয়ে এসেছেন ফাহিম রহমান। তিনি বলেন, ‘ঈদের দিন আত্মীয়-স্বজন বাড়িতে আসেন, তাই কোথাও বেড়ানো হয় না। কর্মস্থল থেকে ছুটি পাওয়াও কষ্টসাধ্য।

তাই দাবদাহ জেনেও দুই দিনের জন্য শুক্রবার পরিবার নিয়ে কক্সবাজার এসেছি। প্রচণ্ড রোদ, তবে ঢেউয়ের সান্নিধ্য পেয়ে সেভাবে অনুভূত হচ্ছে না। বাচ্চা ও পরিবার খুবই উৎফুল্ল মনে সবকিছু উপভোগ করছে।’

কলাতলীর সী-নাইট হোটেলের ব্যবস্থাপক শফিক ফরাজী বলেন, ‘আবহাওয়া ঠান্ডা থাকলে টানা বন্ধে গ্রুপ এবং ইন্ডিভিজ্যুয়াল বুকিং হতো গেস্ট হাউজগুলোতে। অতিরিক্ত গরমের কারণে এবার মাত্র দুদিন চাপ থাকবে। শুক্র-শনিবার লাখো পর্যটক কক্সবাজার অবস্থান করবেন বলে আশা করা যায়।’

সন্ত্রাসবিরোধী অভিযান চলমান এলাকায় পর্যটক ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা
কক্সবাজার রেস্তোরাঁ মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক রাশেদুল ইসলাম ডালিম বলেন, ‘রমাজানের পর পর্যটক বরণে নগরীর আবাসান ও খাবারের ঘরগুলো পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করা হয়। প্রস্তুতি নেন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী-হকাররাও।

মাস দেড়েক ধরে সুনসান নীরবতায় থাকা সৈকত জুড়ে কোলাহলমুখর পরিবেশের আশায় সবার পূর্ব প্রস্তুতি ছিল উল্লেখ করার মতো। কিন্তু পূর্বের সেই আশা পূরণ না হলেও শুক্রবার উল্লেখ করার মতো পর্যটক এসেছে কক্সবাজারে।’

ট্যুর অপারেটর অ্যাসোসিয়েশন অব কক্সবাজারের (টুয়াক) সভাপতি তোফায়েল আহমেদ বলেন, ‘কক্সবাজারে পাঁচ শতাধিক হোটেল-মোটেল, গেস্ট হাউজ ও রিসোর্টে প্রায় দেড় লাখের মতো পর্যটক থাকার ব্যবস্থা রয়েছে।

রোজা শেষ হওয়ার আগে ১২-১৩ এপ্রিলের জন্য ৮০-৯০ শতাংশ রুম বুকিং হয়েছিল। টানা বন্ধ হলেও এ দু’দিন একটু বেশি চাপ থাকবে বলে আশা করছি। তবে পহেলা বৈশাখেও পর্যটক উপস্থিতি মোটামুটি থাকবে বলে আশা করা যায়। সব মিলিয়ে এ তিনদিন কয়েক লাখ পর্যটক আসতে পারে।’

সৈকতের বালিয়াড়ির কিটকট (চেয়ার-ছাতা) ব্যবসায়ী সমিতির নেতা মাহবুবুর রহমান বলেন, ‘পুরো রমজান মাস কক্সবাজার পর্যটকশূন্য থাকায় গত মাস-দেড়েক কর্মচারীদের বেতনও জোগার করতে পারিনি। ঈদের ছুটিতে পর্যটক আগমন বাড়লে ব্যবসা ভালো হবে বলে আশা করছি।’

তারকা হোটেল ওশান প্যারাডাইস লিমিটেডের পরিচালক আবদুল কাদের মিশু বলেন, ‘পর্যটন সেবায় আমাদের যাত্রার পর থেকেই ইংরেজি ও বাংলা নববর্ষ উদযাপনে বর্ণিল আয়োজন করে থাকি।

করোনা ও রোজার মাঝে পড়ায় গত কয়েক বছর বাংলা নববর্ষ বরণে অনুষ্ঠান বন্ধ ছিল। কিন্তু এবার পুরোনো ঐতিহ্য ধরে বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে পহেলা বৈশাখ থেকে তিনদিনের মেলার আয়োজন করছি আমরা। বাঙালিয়ানা ষোলআনা পূর্ণ করতে জলের গান ব্যান্ডদলসহ নানান আয়োজন থাকছে মেলায়।’

পর্যটন উদ্যোক্তা আবদুর রহমান বলেন, ‘পর্যটকদের সেবায় হোটেল-মার্কেটের ব্যবসায়ী ও হকারেরা ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন।’

তিস্তা ব্যারাজে লাখো দর্শনার্থীর ঢল
কক্সবাজার ট্যুরিস্ট পুলিশের অতিরিক্ত ডিআইজি মো. আপেল মাহমুদ বলেন, ‘পর্যটকদের নিরাপত্তা ও সেবায় সৈকত এবং পর্যটন কেন্দ্রগুলোতে সার্বক্ষণিক টহল রয়েছে। ঈদের ছুটিতে ব্যাপক পর্যটক সমাগমের কথা মাথায় রেখে সব ধরনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। সৈকতে পর্যটকদের ওয়ান-স্টপ সার্ভিস চালু করেছি আমরা। বিপদাপন্ন কোনো পর্যটক একটি বাটন টিপেই সেবা নিশ্চিত করতে পারবেন।’

কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (এডিএম) মো. ইয়ামিন হোসেন বলেন, ‘ঈদে টানা ছুটি পড়েছে, গরমও পড়ছে বেশি। এরপরও পর্যটক সমাগম আগের মতো বেশি হবে, সেটা রোজা শেষ হওয়ার আগেই ধারণা করেছিলাম। শুক্রবার সেটা বাস্তবায়ন হয়েছে। রোজার মধ্যেই পর্যটক সংশ্লিষ্ট সব স্টেকহোল্ডারের সঙ্গে সমন্বয় করেছি, যেন পর্যটকেরা ভালো সেবা পান।

হোটেলে-মোটেল ও রেস্তোরাঁয় অতিরিক্ত টাকা আদায় ও অন্যান্য ক্ষেত্রে হয়রানি বন্ধ এবং পর্যটকদের নিরাপদ ভ্রমণ নিশ্চিত করতে সৈকতে এবং আশপাশের বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে একাধিক ভ্রাম্যমাণ আদালত মাঠে থাকবে। আরও কয়েকদিন বালুচর ও কক্সবাজার লোকারণ্য থাকবে, সেই আশা সবার।’

গুরুদাসপুর এখন ভূমিহীন মুক্ত

গুরুদাসপুর (নাটোর). ঘরের চাবি তুলে দিচ্ছেন সংসদ সদস্য আব্দুল কুদ্দুস।-ছবি মুক্ত প্রভাত

Image
সহায় সম্বল বলতে নিজেদের কিছুই নেই। ভিক্ষা করে যা মিলে দিন শেষে সেই আয়ে কোন মতে পেট চালান। রাত এলেই অন্যের জায়গায় পাতা ঝুপড়িতে আশ্রয় নিতে হয়। সেখানে যতটুকু ঘুমান, ভাবনার জায়গাজুড়ে ততটুকুই উচ্ছেদের দুশ্চিন্তা। রোজিনাদের হৃদয়ে বাসা বাধা এই দুশ্চিন্তা এক দিনের নয়! প্রায় দশ বছর ধরে এই অনিশ্চয়তা তাদের জীবনের বড় অংশজুড়ে ঠাঁই করে নিয়েছে। তবে এখন আর রোজিনাদের দুশ্চিন্তার পারদ গিলতে হবে না। ভূমিহীন প্রতিবন্ধি রোজিনা প্রধানমন্ত্রীর উপহার পেয়েছেন। পেয়েছেন মাথা গোঁজার নিরাপদ আবস্থল। এবারের ঈদ নিজেদের ঘরে করতে পারবেন তিনি। প্রতিবন্ধি রোজিনার বাড়ি মশিন্দা ইউনিয়নের শিকারপুর গ্রামে। স্বামী ও দুই মেয়ে নিয়ে তাদের সংসার। বড় মেয়ে তৃতীয় শ্রেণিতে ও ছোট মেয়ে শিশু শ্রেণিতে লেখা-পড়া করছে। রোজিনা বেগম জানালেন, জন্ম থেকেই তিনি প্রতিবন্ধি। নিজের জমি জিরাত না থাকায় প্রতিবেশির পতিত জমিতে বাঁশের ঝুপড়ি বানিয়ে সেখানেই স্বামী সন্তান নিয়ে ঠাসাঠাসি করে বাস করতেন। সাধ্যমত শ্রম বিক্রি করেন। হাতে কাজ না থাকলে অন্যের দ্বারে হাত পাততে হয়। এভাবে কোনমতে খেয়ে না খেয়ে তাদের দিন কাটলেও থাকার জায়গা নিয়ে জটিলতা তৈরি হয়। শঙ্কা দেখা দেয় উচ্ছেদের। উচ্ছ্বসিত কন্ঠে রোজিনা বলেন- তারা প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া উপহারের ঘরে উঠতে যাচ্ছেন। এখন আর তাদের উচ্ছেদের ভায় নেই। রোজিনার মতো আছমা, তানিয়া, কোকেয়ার মতো অসহায় দুস্থ ভিক্ষুক, প্রতিবন্ধী, দিনমজুর, রিকশাচালক, তালাকপ্রাপ্ত, বিধাবা নারী ও গৃহপরিচারিকাসহ চার ধাপে মোট ৫০৬টি ভূমিহীন পরিবার প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর পেয়েছেন। আজ বুধবার সকালে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে ১০০ টি পরিবারের হাতে আনুষ্ঠানিকভাবে ঘরের চাবি এবং জমির দলিল তুলে দেন নাটোর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি স্থানীয় সাংসদ আব্দুল কুদ্দুস। এর মাধ্যমে গতকাল থেকে গৃহহীন এবং ভূমিহীন মুক্ত গুরুদাসপুর ঘোষণা করা হয়। উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. আব্দুল হান্নান জানান, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অর্থায়নে ভূমিহীন প্রকল্পের আওতায় প্রতিটি ঘরে ১ লাখ ৭৫ হাজার টাকা ব্যায় হয়েছে। এই প্যাকেজে রয়েছে প্রতিটি ভূমিহীন পরিবারের জন্য ২ শতাংশ জমি এবং সেমি পাকা বাড়ি। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শ্রাবণী রায় জানালেন- প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর পেয়ে অস্বচ্ছল পরিবারগুলো উন্নত আবাসনের আওতায় এসেছে। দৃষ্টিনন্দন এসব পাকাঘর পেয়ে দরিদ্র উপকারভোগীরা এখন থেকে নিজেদের ঘরে বাস করতে পারবেন। এসব পরিবারে অর্থনৈতিক স্বচ্ছলতা ফেরাতে পর্যায়ক্রমে আয়বর্ধক ব্যবস্থাও নেওয়া হবে।
বাংলাদেশ উপহার প্রধানমন্ত্রী ভূমিহীন
গুরুদাসপুরে ২০০ বিঘা বোরো খেতে জলাবদ্ধতা

গুরুদাসপুর (নাটোর). গুরুদাসপুরে ২০০ বিঘা বোরো খেতে জলাবদ্ধতা তৈরি হেয়ছে।-ছবি মুক্ত প্রভাত

Image
মাঠের বোরো ধানে থোর গজিয়েছে। অনুকুল পরিবেশ পেলে দিন পনেরোর মধ্যে থোর ভেদ করে জমবে দুধসর। অথচ গত দুই দিনের বর্ষণেই বোরো খেতে জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে। পুকুরে আটকে গেছে পানি নিস্কাশন ব্যবস্থা। পানি বের না হলে খেতের বোরো গাছ—খেতেই পচবে। গুরুদাসপুরের হাঁড়িভাঙ্গা বিলের বিয়াঘাট বাবলাতলা ও জ্ঞানদানগর অংশের প্রায় ২শ বিঘা জমির বোরো ধান প্লাবিত হয়ে এমন পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে। স্থায়ী জলাবদ্ধতা শঙ্কায় বোরো ধান বাঁচাতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এসব বোরো চাষীরা। বোরো চাষী বৃষক আব্দুল হালিম জানান, তার ৮ বিঘা বোরো খেতের পাশজুড়ে পুকুর থাকায় বৃষ্টির পানি খেতে আটকা পড়েছে। আবারো বর্ষণ হলে ধানগাছগুলো তলিয়ে যেতে পারে। এতে ধানের থোরে পানি ঢোকার শঙ্কা রয়েছে। থোরে পানি প্রবেশ করলে সেই থোর থেকে ধান ফলবে না। একই কথা জানালেন কৃষক মনিরুল ইসলাম, আব্দুল হাই, নুর ইসলাম, আবু সাইদ। তারা বলেন, পশ্চিমের উজান এলাকা মহিষমারী, সোনাপুর, কুমারখালি ও দস্তনানগরের পানি তাদের বোরো খেতে জমেছে। বোরো খেতের উত্তর-পৃর্বে পুকুর থাকায় বন্ধ হয়ে গেছে পানি নিস্কাশন ব্যবস্থা। ফলে বোরো খেতে দেখা দিয়েছে জলাবদ্ধতা। লম্বা সময় খেতে পানি জমে থাকলে ধান গাছে পচন ধরবে। বিয়াঘাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান জানান, বৃষ্টিতে ভেসে গেছে বাঁশের ডহর, বালুর ধর নামের দুটি খাল। খাল উপচে হাঁড়িভাঙ্গা বিলে প্রবেশ করেছে ঢলের পানি। এতে বিয়াঘাট বাবলাতলা ও জ্ঞানদানগর এলাকার প্রায় ২শ বিঘার বেশি বোরো ধান খেত প্লাবিত হয়েছে। দ্রুত পানি নিস্কাশন না করা গেলে বোরো ধানে অপূণীয় ক্ষতি হবে কৃষকের। গুরুদাসপুর কৃষি সম্প্রসারণ অফিসের তথ্যমতে- চলতি মওসুমে হাঁড়িভাঙ্গা বিলে প্রায় ৪৫ হেক্টর জমিতে বোরো আবাদ করা হয়েছে। স্থানীয় কৃষকেরা বলছেন, শুধু বিয়াঘাট বাবলাতলা ও জ্ঞানদানগর নয়Ñভাড়ি বর্ষণ হলে ৪৫ হেক্টর জমির বোরো ধানই তলিয়ে যাবে। ধান রক্ষায় পানি নিস্কাশনের স্থায়ী ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি তাদের। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা হারুনর রশিদ বলেন, হাঁড়িভাঙ্গা বিলে অপরিকল্পিত পুকুর খননের ফলে পানি নিস্কাশন ব্যবস্থা নাজুক হয়ে পড়েছে। এতে করে এই বিলে সব ধরণের চাষাবাদ কঠিন হয়ে পড়েছে। চাষাবাদের ক্ষেত্রে ব্যপক সমস্যার সম্মুখিন হচ্ছেন কৃষকেরা। তিনি বলেন, বিয়াঘাট বাবলাতলা ও জ্ঞানদানগর এলাকার বোরো খেতে জলাবদ্ধতার কথা তিনি শুনেছেন। এই বিলের পানি নিস্কাশনের জন্য ড্রেন নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছেন তারা। সরেজমিন পরিদর্শন করে বোরো রক্ষায় খুব দ্রুত ড্রেনেজ ব্যবস্থা চালু করা হবে।
নাটোর গুরুদাসপুর জলাবদ্ধতা বোরো ধান
একই সাথে দুই ডিম দিচ্ছে রকিবুলের ব্রয়লার মুরগি!

একই সাথে দুই ডিম দেওয়া মুরগির সাথে রকিবুলের পরিবার।-ছবি মুক্ত প্রভাত

Image
শুনতে অদ্ভুত মনে হলে ওবাস্তবে একটি মুরগি প্রতিদিন দুইটি করে ডিম দিচ্ছে। এরআগে এক মুরগির পেট থেকে একই সাথে দুই ডিম দেওয়ার সন্ধান পাওয়া যায়নি। এবার অবিশ্বাস্য এই ঘটনাটিই ঘটেছে নাটোরের বাগাতিপাড়ায়। খোঁজ নিয়ে জানাগেছেÑ বাগাতিপাড়া সদর ইউনিয়নের ঠেঙ্গামারা গ্রামের রকিবুল ইসলামের বাড়িতে ব্রয়লার মুরগির খামার রয়েছে। তার খামারে ব্রয়লার জাতের এমন একটি মুরগি আছে-মুরগিটি প্রতিদিন একই সাথে দুইটি করে ডিম দিচ্ছে। অবিশ্বাস্য ঘটনার রহস্য উদঘাটনে সরেজমিনে রকিবুলের মুরগির খামার পরিদর্শন করা হয় গতকাল সকালে। বাড়িতে ঢুকতেই দেখা গেলÑ স্থানীয় লোকজন রহস্যময় সেই মুরগিটিকে দেখার জন্য জটলা পাকিয়ে আছেন। উৎসুখ জনতার অনেকেই মুরগিটিকে নিয়ে ছবিও তুলছেন। ছবি তুলছেন মুরগির মালিক ও তার পরিবারের সদস্যদের সাথেও। ভীড় ঠেলে ভিতরে গিয়ে কথা হয় মালিক রাকিবুল ইসলাম রকির সাথে। তিনি জানান, ব্রয়লার মুরগির ব্যবসা করার জন্য নাটোরের বিসমিল্লাহ হ্যাচারী থেকে ১০০টি মুরগি ক্রয় করে নিয়ে আসেন। মুরগি গুলো আস্তে আস্তে বড় হতে থাকলে তিনি সেগুলোকে বিক্রি করে দিয়ে এই মুরগিটিকে পালনের উদ্দেশ্যে রেখে দেন। হটাৎ একদিন মুরগির কোঠায় একটি ডিম দেখে অবাক হন তিনিসহ পরিবারের সদস্যরা। তারপরের দিনই দুইটি ডিম দেখেন কোঠায়। এভাবে ৪ মাস থেকে দুইটি করে ডিম দিচ্ছে মুরগিটি। রাতে মুরগিটি কোঠায় ঢুকলে সকালে বেড় হবার সময় একটি ডিম পাওয়া যায় আবার দুপুরে ঢুকলে বিকেলে আরেকটি ডিম পাওয়া যায়। মাঝে মধ্যে একটি করেও ডিম দেয় মুরগিটি আর দ্বিতীয় ডিমটি একটু নরম হয় বলেও জানান তিনি। মুরগিটির ওজন প্রায় ৬ কেজি। এদিকে, উপজেলা প্রাণিসম্পদ দপ্তর ও ভেটেনারী হাসপাতাল বলছে মুরগিটি খাবারে অতিরিক্ত পুষ্টি পাওয়ায় এমনটি ঘটতে পারে। লোকমুখে শুনে এক মুরগির দুইটি ডিম দেবার ঘটনার সত্যতা পেয়েছে বলে দাবী করেন স্থানীয় ইউপি সদস্য। এবিষয়ে কনজ্যুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব)’র উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক আরিফুল ইসলাম তপু বলেন, ‘পরিদর্শন করে ঘটনার সত্যতা পেয়েছি। হয়তো বিজ্ঞানের অগ্রযাত্রার কারণে এটি সম্ভব হয়েছে।’ মুরগিটি নিয়ে গবেষণা করে নতুন জাত সৃষ্টি করা যেতে পারে বলেও মনে করেন তিনি। উপজেলা প্রাণিসম্পদ দপ্তর ও ভেটেনারী হাসপাতাল কর্মকর্তা (ভার.) ডা. আবু হায়দার আলী বলেন, ‘স্বাভাবিক ভাবে একটি ডিম তৈরি হতে ২৪ ঘন্টা সময় লাগে। ১২ ঘন্টা পর পর একটি করে ডিম দেয়ার ঘটনাটি অস্বাভাবিক। মুরগিটি দেখে ঢাকা থেকে গবেষক টিম আনার ব্যবস্থা করবো। এই মুরগি থেকে দুইটি করে ডিম দেয়া মুরগির জাত উদ্ভাবন করতে পারলে শুধু জাতীয় না আন্তর্জাতিক পর্যায়ে বাংলাদেশ সুনাম কুড়াবে বলে আশা করি।’
নাটোর বাগাতিপাড়া ডিম মুরগি
পদ্মার পাড়ে পড়ে থাকা গাড়ি থেকে দুর্গন্ধ, বের হলো বস্তবন্দি লাশ

পদ্মার পাড়ে দুইদিন ধরে পড়েছিল এই বিলাশ বহুল গাড়িটি। পড়ে গাড়ি থেকে বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করা হয়ে।-চবি সংগৃহিত

Image
সাদা রঙের বিলাসবহুল একটি গাড়ি দুই ধরে পড়েছিল। আজ শনিবার সকালে সেই গাড়ি থেকে দুর্গন্ধ ছড়াতে থাকে। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে গাড়ি থেকে বস্তাবন্দি এক যুবকের লাশ উদ্ধার করে। আজ শনিবার সকালে কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার চরসাদিপুর ইউনিয়নের সাদিপুর খেয়াঘাট এলাকা থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়। বিস্তারিত আসছে....
পদ্মা নদী কুষ্টিয়া পুলিশ লাশ
উখিয়ায় একলাখ ইয়াবাসহ রোহিঙ্গা যুবক আটক

উখিয়ায় একলাখ ইয়াবাসহ রোহিঙ্গা যুবক আটক করা হয়।-ছবি মুক্ত প্রভাত

Image
কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালং এলাকা থেকে একলাখ ইয়াবাসহ এক রোহিঙ্গা মাদক কারবারিকে আটক করেছে র‌্যাব। শুক্রবার (২৪মার্চ) রাত ১১টার দিকে উখিয়া কুতুপালং বাজারের উত্তরে মেসার্স চৌধুরী ফিলিং হতে তাকে আটক করা হয়। শনিবার (২৫মার্চ) বেলা ১১টার দিকে র‌্যাব ১৫ সহকারী পুলিশ সুপার (ল’এন্ড মিডিয়া)শামসুল আলম খান বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাবের একটি দল জানতে পারে- মাদক কারবারি বিপুল পরিমাণ ইয়াবা ক্যাম্পে ঢুকবে। এমন খবরে কুতুপালং এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে। এ সময় একলাখ ইয়াবাসহ কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের নুর সালামের ছেলে আলী জোহারকে (৩৪) আটক করা হয়। আটক রোহিঙ্গা যুবককে ইয়াবাসহ উখিয়া থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।
কক্সবাজার ইয়াবা যুবক রোহিঙ্গা
খুনিয়াদীঘি স্মৃতিস্তম্ভ/ দিন মাস বছর গেল অবহেলায় ‘এখনো তাই....!’

অযত্নে অবহেলায় খুনিয়াদীঘি স্মৃতিস্তম্ভ।-ছবি মুক্ত প্রভাত

Image
সঠিক তদারকির অভাবে অযত্নে অবহেলায় পড়ে রয়েছে ঠাকুরগাঁও রাণীশংকৈল উপজেলার মুক্তিযদ্ধের ইতিহাস সমৃদ্ধ খুনিয়াদীঘি স্মৃতিস্তম্ভ। উপজেলা সদর থেকে এক কিলোমিটার অদূরে শান্তিপুর বাশঁবাড়ী এলাকায় অবস্থিত স্বাধীনতা সংগ্রামের ইতিহাস ঐতিহ্যর একমাত্র স্থানের নাম খুনিয়াদীঘি। এ দিঘীতে পাকিস্তানি বাহিনীদের ক্যাম্প ছিল। এখানেই তারা শত শত মুক্তিকামীদের ধরে নিয়ে এসে দিঘীর পাহাড়ে দাড় করিয়ে ব্রাশ ফায়ার করে মেরে খুনিয়াদীঘির পানিতে ফেলে দিতো। মুক্তিকামীদের রক্তে রঞ্জিত হয়ে যেত দিঘীর পানি। অথচ এ রকম একটি ইতিহাস সমৃদ্ধি স্থান অবেহেলিত। অভিযোগ রয়েছে শুধু মাত্র জাতীয় দিবস উদযাপন করার সময় এটিকে কিছু চুন দিয়ে রং করে সৌন্দয বর্ধন করে দিবসটি পালন করা হয়। তাছাড়া এর আবকাঠামো সংরক্ষণের কোন নজর নেই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের। জানা গেছে, স্বাধীনতার পরে দিঘীটির পূর্ব দিকের পাহাড়ে যুদ্ধের সময়কার ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা শহীদ যোদ্ধাদের মৃত দেহের বিভিন্ন হাড়হাড্ডি নিয়ে একস্থানে ফেলে সেখানে মাটি ঢাকা দিয়ে একটি স্মৃতিসৌধ করা হয়। ১৯৭৪ সালে খুনিয়াদীঘিকে মুক্তিযদ্ধের শহীদদের স্মরণে স্মৃতিসৌধ নির্মাণ করে। সেটি আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন জাতীয় চার নেতার অন্যতম এইচএম কামরুজ্জামান। সে থেকে স্বাধীনতা দিবস,বিজয় দিবসে ওই স্মৃতিসৌধেই মহান মুক্তিযুদ্ধের শহীদদের স্মরণে শ্রদ্ধা জানিযেছে আসছে প্রশাসনসহ সব শ্রেনীর মানুষজন। এদিকে খুনিয়াদীঘি স্মৃতিসৌধের পাশাপাশি দিঘীটির উত্তর পার্শ্বের পাহাড়ে ২০১৯ সালের দিকে আধুনিক ১তলা ভবনসহ স্মৃতিস্তম্ভ ও শিশু পার্ক নির্মাণ করা হয়। ওই স্মৃতিস্তম্ভে সম্প্রতি সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, স্মৃতিস্তম্ভের বিভিন্ন স্থানের টাইলস উঠিয়ে ফেলা হয়েছে। ভবনের ওয়াশরুমে কোমট ভাঙ্গা,পানির ট্যাপগুলো ছোটা,ইলেকট্রিক লাইটের হোল্ডারগুলো নেই। সুইচসহ বোড নেই। এছাড়াও শিশুদের খেলার জন্য দোলনার ফ্রেমের দোলনাটি নেই। অপরদিকে খুনিয়াদীঘির পূর্ব পার্শ্বে স্মৃতিসৌধের ইটের নির্মাণকৃত নিরাপত্তা বেষ্টনীর মাঝে লোহার রড দিয়ে গ্রিল দেওয়া হয়। এতে প্রায় ৫৫টি গ্রিলের প্রায় ২৯টি গ্রিল নেই। অবশিষ্ট গ্রিলগুলোর মধ্যে ১৯টির পূর্ণাঙ্গ গ্রিল রয়েছে। ৭টির রয়েছে অর্ধেক গ্রিল । ওই এলাকার বাসিন্দা মোবারক আলী,রাকিবসহ অনন্ত দশজন জানান,সন্ধা নামলেই এ দিঘীর স্মৃতিসৌধ দুটিতে মাদক সেবীদের হাট বসে। অবাধে মাদকসেবীরা এখানে চলাফেরা করে। মাদকসেবীদের মধ্যে অনেকেই স্মৃতিসৌধ ও স্মৃতিস্তম্ভের বিভিন্ন স্থাপনার দামী জিনিসগুলো চুরি করে নিয়ে ভাঙ্গারীর দোকানে বিক্রি করে সে টাকা দিয়ে মাদক সেবন করে বলে জানতে পেরেছি। তাই তিনি বলেন,সবার আগে মাদকসেবীদের আড্ডা বন্ধ করে তারপর এটিকে সংরক্ষের চেষ্টা করতে হবে। মুক্তিযোদ্ধা হবিবর রহমান বলেন, খুনিয়াদীঘির স্মৃতিসৌধ ও স্মৃতিস্তম্ভের স্থাপনা রক্ষার্থে ইতিমধ্যে জেলা প্রশাসন ও উপজেলা প্রশাসনে লিখিত আবেদন দেওয়া রয়েছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোহেল সুলতান জুলকার নাইন কবির বলেন,স্মৃতিসৌধে সঠিক তদারকির ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। তাছাড়া নতুন স্মৃতিস্তম্ভের বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে ইতিমধ্যে বিভিন্ন উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে।
ঠাকুরগাঁ স্মৃতিতম্ভ
বদলগাছীতে গণহত‍্যা দিবস পালন

দলগাছীতে গণহত‍্যা দিবস উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।-চবি মুক্ত প্রভাত

Image
নওগাঁর বদলগাছীতে ২৫শে মার্চ গণহত‍্যা দিবস উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ২৫ মার্চ শনিবার সকাল ১০টায় উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উপজেলা পরিষদ অডিটোরিয়াম হল রুমে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আলপনা ইয়াসমিনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান মো. সামসুল আলম খান। অন্যন‍্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বদলগাছী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু খালেদ বুলু, সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান কিশোর,থানার ওসি(তদন্ত) রায়হান হোসেন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ইমামুল আল হাসান তিতু, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার জবির উদ্দীন প্রমূখ। এ সময় উপজেলার ৮টি ইউনিয়নের চেয়ারম্যানসহ বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা কর্মচারিরা উপস্থিত ছিলেন।
নওগাঁ সভা গণহত্যা
সিরাজগঞ্জে গভির রাতের আগুনে পুড়েছে ছয় দোকানের মালামাল

সিরাজগঞ্জ: পুড়ে ছাই হয়েছে।-ছবি মুক্ত প্রভাত

Image
সিরাজগঞ্জের সলঙ্গায় একটি মার্কেটে আগুন লেগে ৬ দোকানে থাকা যাবতীয় মালামাল পুড়ে গেছে। এতে প্রায় ৬০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে। শুক্রবার রাতে সলঙ্গার চড়িয়া কালিবাড়ি এলাকার বারিক মাষ্টারের মার্কেটে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে এসে প্রায় এক ঘন্টার প্রচেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রনে নিয়ে আসে। মার্কেট মালিক আব্দুল বারীক মাস্টার জানান, কয়েল থেকে আগুনের সূত্রপাত হয় পরে আগুনের লেলিহান শিখা ছড়িয়ে পড়ে অন্য দোকানগুলোতে। আগুন লেগে মার্কেটের ৬টি দোকানে থাকা মালামাল পুড়ে নষ্ট হয়ে গেছে। তিনি আরও জানান, মার্কেটে বাস-ট্রাক মেরামতের মেকানিক ওয়ার্কসপের দোকান ছিলো। এজন্য ওই দোকান থেকে মেরামতের জন্য মার্কেটের সামনের ফাকা জায়গায় দুইটি ট্রাক রাখা ছিলো। আগুনে সেগুলোও পুড়ে গেছে। সব মিলিয়ে প্রায় ৬০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে। উল্লাপাড়া ফায়ার সার্ভিসের ফায়ার ফাইটার ইমরান হোসেন জানান, খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌছে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে। কয়েলের আগুন থেকে ঘটনার সূত্রপাত হলেও যন্ত্রাংশের ভেতরে তেল জাতীয় পদার্থ থাকার কারনে আগুনের তীব্রতা বেড়েছে। তবে দ্রুত আগুন নিয়ন্ত্রনে আনায় গ্যাস সিলিন্ডার বিষ্ফোরন থেকে রক্ষা পেয়েছে।
সিরাজগঞ্জ ক্ষতি দোকান আগুন
উল্লাপাড়ায় মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা

উল্লাপাড়ায় মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা

Image
মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে রোববার উল্লাপাড়ায় বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা দেওয়া হয়। উল্লাপাড়ার সংসদ সদস্য তানভীর ইমাম এতে প্রধান অতিথি ছিলেন। উপজেলা প্রশাসন সরকারি আকবর আলী কলেজের গোপাল হলে এই সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ উজ্জল হোসেনের সভাপতিত্বে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, উল্লাপাড়া পুলিশ সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার অমৃত সূত্রধর, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম মোস্তফা, উল্লাপাড়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ নজরুল ইসলাম প্রমুখ। পড়ে মুক্তিযোদ্ধাদের হাতে শুভেচ্ছা উপহার তুলে দেন তানভীর ইমাম এমপি।
কর্মকর্তা মহান স্বাধীনতা দিবস সংবর্ধনা
আদ্-দ্বীন উইমেন্স মেডিকেল কলেজে মহান স্বাধীনতা দিবস পালিত
Image
নানা কর্মসুচির মধ্য দিয়ে রাজধানীর মগবাজারে অবস্থিত আদ্-দ্বীন উইমেন্স মেডিকেল কলেজে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস পালিত হয়েছে। রবিবার (২৬ মার্চ) সকাল ১০ টায় বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করেন মেডিকেল কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। পরে কলেজের ইব্রাহিম লেকচার থিয়েটারে স্বাধীনতা দিবস ও জাতীয় দিবসের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আদ্-দ্বীন উইমেন্স মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মাহমুদা হাসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন আদ্-দ্বীন মেডিকেল কলেজসমূহের চেয়ারম্যান (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যাপক ডা. মুহাম্মদ আব্দুস সবুর। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন আদ্-দ্বীন ফাউন্ডেশনের উপদেষ্টা হারুন অর রশিদ, আদ্-দ্বীন উইমেন্স মেডিকেল কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ ও আদ্-দ্বীন ফাউন্ডেশনের উপদেষ্টা অধ্যাপক ডা. আফিকুর রহমান, ফাউন্ডেশনের উপদেষ্টা অধ্যাপক ডা. আনোয়ার হোসেন মুন্সী, আদ্-দ্বীন হাসপাতালসমূহের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাহিদ ইয়াসমিন প্রমূখ। এসময় মেডিকেল কলেজের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী ও শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন। আলোচনা সভায় বক্তরা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ ’৭১ এর সকল যোদ্ধাদের অবদানকে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেন এবং সকল শহীদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন। প্রধান অতিথি হিসেবে অধ্যাপক ডা. মুহাম্মদ আব্দুস সবুর বলেন, স্বাধীনতা আমাদের জন্য অনেক আনন্দের। তবে এর পেছনে একটি করুণ কাহিনী আছে। আমাদেরকে স্বাধীনতার সঠিক ইতিহাস জানতে হবে। বহু ত্যাগ, তিতিক্ষা ও আত্মত্যাগের বিনিময়ে আমাদের স্বাধীনতা অর্জিত হয়েছে। সেই স্বাধীনতার ধারক হিসেবে নতুন প্রজন্মকে সুনাগরিক হয়ে দেশকে ভালবেসে নিঃস্বার্থভাবে দেশের জন্য কাজ করতে হবে। আদ্-দ্বীন ফাউন্ডেশনের উপদেষ্টা হারুন অর রশিদ বলেন, স্বাধীনতা আমাদের জন্য একটি গৌরবের দিন। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন ছিল সোনার বাংলা গড়া। সোনার বাংলা গড়তে হলে সোনার মানুষ চাই। আর এই সোনার মানুষ হল দেশপ্রেমিক মানুষ, সৎ মানুষ ও দ্বায়িত্বশীল মানুষ। আমাদের প্রত্যাশা থাকবে সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠা করতে বাংলার প্রতিটি ঘরে ঘরে সোনার মানুষ গড়ে উঠুক। আদ্-দ্বীন উইমেন্স মেডিকেল কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. আফিকুর রহমান স্বাধীনতা যুদ্ধের স্মৃতিচারণ মূলক ভিডিও ডকুমেন্টারি প্রদর্শন করেন। সভাপতির বক্তব্যে অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মাহমুদা হাসান শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্য বলেন, স্বাধীনতা যুদ্ধ সম্পর্কে জানতে হলে তোমরা প্রত্যক্ষদর্শীদের কাছ থেকে যুদ্ধের গল্প শুনবে।তাদের অনুভূতিগুলো উপলব্ধি করবে।তোমরা স্বাধীনতার ইতিহাস বহন করে পরবর্তী প্রজন্মকে সঠিক ইতিহাস জানাবে। তাই এই বিশেষ দিনটিতে আমাদের অঙ্গীকার হোক একটি সুখী সমৃদ্ধ স্বপ্নীল বাংলাদেশের। আলোচনা সভা শেষে আদ্-দ্বীন উইমেন্স মেডিকেল কলেজের ছাত্রীদের অংশগ্রহণে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
মেডিকেল আদ্-দ্বীন উইমেন্স স্বাধীনতা দিবস
রমজানে পর্যটক শূন্য কক্সবাজারের হোটেল-মোটেলে কর্মী ছাঁটাই

-ছবি সংগৃহিত

Image
একদিকে মার্চে শেষ হয়েছে পর্যটন মৌসুম, অপরদিকে চলছে রমজান মাস। এ কারণে পর্যটক শূন্য হয়ে পড়েছে দেশের পর্যটন রাজধানী কক্সবাজার। রমজান শুরু থেকে জনশূন্য হয়ে আছে দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকতসহ কক্সবাজারের পর্যটন স্পটগুলো। তবে ঈদকে সামনে রেখে মেরামত ও নতুন করে সাজসজ্জার কাজ শুরু করেছে অধিকাংশ হোটেল, মোটেল-কটেজ ও রেস্টুরেন্টগুলো। একই সাথে ছাঁটাই করা হয়েছে অনেক কর্মচারীদেরও। জানা গেছে, রমজানের শুরু থেকে কক্সবাজারে পর্যটক শূন্য। তাই পর্যটন জোন কলাতলীর সাড়ে ৪ শতাধিক হোটেল, মোটেল ও কটেজগুলোর বুকিংও শূন্য। একই সাথে পর্যটন জোনের সব ধরনের খাবার হোটেলেও ক্রেতা না থাকায় বেশির ভাগ হোটেল ও রেস্তোরাঁ বন্ধ রাখা হয়েছে। সময়ের হিসেবে শেষ হয়েছে পর্যটন মৌসুম। তার ওপর এসেছে রমজান। সব মিলিয়ে পর্যটক শূন্য হয়ে পড়েছে কক্সবাজার। পহেলা রমজান থেকে এক প্রকার জনশূন্য হয়ে আছে কক্সবাজারের পর্যটন স্পটগুলো। পর্যটক না থাকায় মেরামত ও সাজ-সজ্জার কাজ শুরু করেছে অধিকাংশ হোটেল-মোটেল-কটেজ ও রেস্টুরেন্টগুলো। এ ছাড়া ছাঁটাই করা হয়েছে কর্মচারীও। কক্সবাজার শহরের কলাতলী ওয়ার্ড বীচের ফ্ল্যাট ব্যবসায়ী তৌহিদুর ইসলাম বলেন, রোজা শুরু হাওয়ার পর থেকে কক্সবাজার একদম পর্যটক নেই। গত তিন দিনে একটি কক্ষও ভাড়া দিতে পারেনি।তবে সময়ে রুম গুলোর মেরামতের সিন্ধান্ত নিয়েছি।কারন ঈদের দিন থেকে পর্যটক আসতে শুরু করবে।এই এক মাসে আই ঈদেন ছুটিতে পুষিয়ে নিতে হবে । একই কথা জানিয়ে শালিক রেস্তোরাঁর মালিক নাছির উদ্দীন বাচ্ছু। তিনি জানান এই মূহুর্তে কক্সবাজারে একদম পর্যটক নেই। অন্যান্য বছর কিছুটা পর্যটক থাকলেও এবারে একদম নেই।ঈদ মৌসুমকে সামনে রেখে আমরা প্রস্তুতি নিচ্ছি। পর্যটক না থাকার এ সময়কে মেরামত, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা ও সাজ-সজ্জার মোক্ষম সময় হিসেবে নিয়েছেন মালিকরা। আগামী মৌসুমের উপযোগী করতে এখন অধিকাংশ হোটেল-মোটেল-কটেজ ও রেস্টুরেন্টে মেরামত, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা ও সাজ-সজ্জার কাজ চলছে। হোটেল আইল্যান্ডিয়ার ব্যবস্থাপনা পরিচালক নূরুল কবির পাশা বলেন, পুরো রমজান মাস পর্যটক আসবে না। ফলে বুকিং শূন্য থাকবে সব কক্ষ। এখন হোটেলকে নতুন রূপে তৈরির উপযুক্ত সময়। তাই হোটেলের কক্ষগুলো পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করা হচ্ছে। একইসঙ্গে ফ্রন্ট ডেস্ক থেকে শুরু করে বাহ্যিক স্থানগুলোকেও নতুন করে সাজানো হচ্ছে। কক্সবাজার হোটেল-মোটেল, গেস্ট হাউস মালিক সমিতির সভাপতি আবুল কাশেম সিকদার বলেন, স্বাভাবিকভাবে রমজান মাসে পর্যটক তেমন থাকে না। এবার কিন্তু পর্যটক শূন্যতা বেশি দেখা যাচ্ছে। ফলে সব ধরনের হোটেল-মোটেল ও গেস্ট হাউসে বুকিং শূন্য রয়েছে। শুধু হোটেল-রেস্টুরেন্ট নয়, রমজানের কারণে পর্যটন সংশ্লিষ্ট ব্যবসাগুলোও বন্ধ রয়েছে। বিশেষ করে সৈকত এলাকার ঝিনুক, আচার, মাছ ফ্রাই এবং কাপড়ের দোকানগুলো ৯০ শতাংশ বন্ধ রাখা হয়েছে। হোটেল-মোটেল কর্মকর্তা-কর্মচারী অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক কলিম উল্লাহ বলেন, পর্যটক না থাকায় বহু হোটেল-কটেজে কর্মচারী ছাঁটাই করে। এতে পুরো রমজান ও ঈদে পরিবার-পরিজন নিয়ে বেশ কষ্ট পাবে তারা।
হোটেল সমুদ্র কক্সবাজার
ইসলামপুরে স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস পালিত

ইসলামপুরে স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস পালিত

Image
জামালপুরের ইসলামপুরে সারাদেশের ন্যায় যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে দিবসটি পালন করা হয়। ২৬ মার্চ প্রত্যুষে ৩১ বার তপোধ্বনির মাধ্যমে দিবসের শুভ সূচনা করা হয়। পরে মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পস্তবক অপর্ণ করেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী আলহাজ ফরিদুল হক খান দুলাল এমপি। উপজেলা প্রশাসন, উপজেলা আওয়ামীলীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টি, ইসলামপুর প্রেসক্লাব সহ সকল সরকারি, আধা সরকারি, স্বায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠান। সকালে উপজেলা আওয়ামী লীগ দলীয় কার্যালয়ে ধর্ম প্রতিমন্ত্রী ফরিদুল হক খান দুলাল এমপির নেতৃত্বে দলীয় ও জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। পরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুঃ তানভীর হাসান রুমানের সভাপতিত্বে উপজেলা প্রশাসন কর্তৃক আয়োজিত আলোচনা সভায় ইসলামপুর উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের অংশ গ্রহণে কুচকাওয়াজ ও শরীরচর্চা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী ফরিদুল হক খান দুলাল।এ সময় উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এস.এম জামাল আব্দুন নাসের বাবুল, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. আঃ সালাম,সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মানিকুল ইসলাম মানিক, ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল খালেক আকন্দ, রোজিনা আক্তার চায়না, অফিসার ইনচার্জ মাজেদুর রহমান, সরকারি ইসলামপুর কলেজের উপাধ্যক্ষ ফরিদ উদ্দিন আহমেদ, অধ্যক্ষ জামান আব্দুন নাসের চৌধুরী চার্লেস, বীর মুক্তিযোদ্ধা, বিভিন্ন দপ্তরের সরকারি কর্মকর্তা কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক নেতৃত্ব এবং দেশের উন্নয়ন বিষয়ে আলোচনা এবং বীর মুক্তিযোদ্ধাদের ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।
পালন কর্মকর্তা ঐতিহাসিক জাতীয় দিবস মহান স্বাধীনতা দিবস
বদলগাছীতে ৫৩তম মহান স্বাধীনতা দিবস পালিত

বদলগাছীতে ৫৩তম মহান স্বাধীনতা দিবস পালিত

Image
সারা দেশের ন‍্যায় যথাযথ মর্যাদায় নওগাঁর বদলগাছীতে ৫৩তম মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস পালিত হয়েছে। রবিবার বদলগাছীতে ভোর রাত্রি ১২টা ০১মিনিটে প্রত্যুষে তোপধ্বনির মধ‍্য দিয়ে দিবসের সূচনা শুরু করা হয়। এরপর সূর্যোদয়ের সাথে সাথে উপজেলা পরিষদ সংলগ্ন শহীদ স্মৃতি সৌধে নওগাঁ ৩ আসনের স্থানীয় সাংসদ সেলিম তরফদার এর পক্ষে পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে উপজেলা প্রশাসন, উপজেলা পরিষদ, উপজেলা আওয়ামী লীগ ও এর অংগ সংগঠন, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, বাংলাদেশ পুলিশ, এনজিও, স্কুল ও কলেজ, সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠান প্রধান শহীদ বেদিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে উপজেলার শেখ রাসেল মিনি ষ্টেডিয়াম মাঠে সকাল ৮টায় আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে দিনটির শুভ উদ্ভোধন করেন উপজেলা প্রশাসন। উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে থানা পুলিশ,ফায়ার সার্ভিস,আনসার ও বিভিন্ন স্কুলের ছাত্রছাত্রীরা কুচকাওয়াজে অংশগ্রহণ করে ও ক্রীড়া অনুষ্ঠান শেষে দেশের ৫৩তম মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয় উপজেলা নির্বাহী অফিসার আলপনা ইয়াসমিনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান শামসুল আলম খান, বদলগাছী থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আতিয়ার রহমান, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আবু খালেদ বুলু, সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান কিশোর, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সালাম মন্ডল, সদর ইউপি চেয়ারম্যান মো. আনোয়ার হোসেন, উপজেলা সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার জবির উদ্দিন এফ এফ, প্রমুখ।
স্বাধীনতা দিবস
রূপগঞ্জে ২৬ শে মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে ইফতার সামগ্রী বিতরণ

পগঞ্জে ২৬ শে মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে ইফতার সামগ্রী বিতরণ

Image
নারায়নগঞ্জের রূপগঞ্জ সদর ইউনিয়নে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী (বীর প্রতীক)এমপির পক্ষ থেকে ইফতার সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। আজ (২৬-ই মার্চ) বুধবার বিকালে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে রূপগঞ্জ সদর ইউনিয়নের হাবিব নগর হাবিবুর রহমান হারেস কলেজ মাঠ প্রাঙ্গনে নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের সদস্য ও উপজেলা আওয়ামীলীগের কার্যকারী সদস্য মোহাম্মদ আনছর আলীর উদ্যোগে ইফতার সামগ্রী বিতরণ করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আলহাজ্ব হাবিবুর রহমান হারেজ,রূপগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুল মোমেন মিয়া,সদর ইউনিয়ন যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ মোহন মিয়া,সদর ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক সভাপতি শাহা মোহাম্মদ জিলানী ভান্ডারী,ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা সাদ্দাম হোসেন, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ সভাপতি মিঠু খন্দকার,আওয়ামীলীগ নেতা আব্দুল সালাম, মনির হোসেন,নবী হোসেন,১নং ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি মুরাদ হাছান,যুবলীগ নেতা আবু তাহের,সাইফুল ইসলাম মামুন,আনোয়ার হোসেন লিমন, ফরিদ উদ্দিন প্রমুখ।
কর্মকর্তা চেয়ারম্যান স্বাধীনতা দিবস দিবস.
বড়াইগ্রামে মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে ইফতার মাহফিল

ইফতার মাহফিল

Image
নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলায় বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে উপজেলা চেয়ারম্যান এর ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলা চেয়ারম্যান ডাঃ মোঃ সিদ্দিকুর রহমান পাটোয়ারীর আয়োজনে রবিরার বিকালে বনপাড়া আওয়ামীলীগ এর আঞ্চলিক কার্যালয়ে এই ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল খায়ের এর সঞ্চলনায় ও বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আব্দুস সাত্তার এর সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচক হিসাবে বক্তব্য রাখেন উপজেলা চেয়ারম্যান ডাঃ মোঃ সিদ্দিকুর রহমান পাটোয়ারী। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তৃতা করেন গোপালপুর ইউপি চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আবু বক্কর সিদ্দিক, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ মমিন আলী, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ সাদেক আলী প্রমুখ। বক্তারা সকলেই উপজেলা চেয়ারম্যান ডাঃ সিদ্দিকুর রহমান পাটোয়ারীকে এম.পি হিসাবে দেখতে চান। পরে দেশ ও জাতির কল্যান কামনা করে বিশেষ দোয়া মোনাজাত করা হয়।
রমজান ইফতার মাহফিল
বাগাতিপাড়ায় ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে নগদ অর্থের বিল প্রদান

প্রতিষ্ঠানে নগদ অর্থের বিল প্রদান

Image
নাটোরের বাগাতিপাড়ায় ২০২২-২৩ অর্থ বছরে গ্রামীণ অবকাঠামো রক্ষণাবেক্ষণ (টিআর) কর্মসূচির আওতায় নির্বাচনী এলাকা ভিত্তিক প্রথম পর্যায়ে নগদ অর্থের বিল প্রদান করা হয়েছে। সোমবার সকালে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার কার্যালয়ের আয়োজনে বিতরণ করা হয়। ইউএনও নীলুফা সরকার’র সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি থেকে নগদ অর্থের বিল বিতরণ করেন স্থানীয় সংসদ সদস্য শহিদুল ইসলাম বকুল। বিশেষ অতিথি ছিলেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অহিদুল ইসলাম গকুল, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আব্দুর রাজ্জাক, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা ড. ভবসিন্ধু রায়, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নুরুল ইসলাম ঠান্ডু, বীর মুুক্তিযোদ্ধা শ্যামল কুমার রায়, উপজেলা প্রেসক্লাব সক্রেটারি ফজলে রাব্বী ও উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা নুরুন্নবী সরকার। উল্লেখ্য, টিআর উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় উপজেলার ৪০টি ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে প্রায় ২৬ লক্ষ টাকার বিল বিতরণ করা হয়।
ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে নগদ অর্থের বিল প্রদা বাগাতিপাড়ায়
উল্লাপাড়ায় বিদ্যুৎ স্পর্শে শিশুর মৃত্যু

স্পর্শে শিশুর মৃত্যু

Image
উল্লাপাড়ায় সোমবার দুপুরে বিদ্যুৎ স্পর্শে রাইসা (৬) নামের এক শিশু মারা গেছে। আহত হয়েছে তার চাচাতো ভাই নাফিস (৩)। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার পঞ্চক্রোশী ইউনিয়নের রাঘববাড়িয়া গ্রামে। নিহত রাইসা এই গ্রামের রাশিদুল ইসলামের মেয়ে। আহত নাফিজ ফরিদুল ইসলামের ছেলে। নাফিসকে কামারখন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়েছে। নিহতের পরিবার সূত্রে জানা গেছে রাইসার বাবা নতুন ঘর দেবার জন্য তাদের পুরোনো ঘর ভেঙ্গে ফেলেন। ওই ঘরের বিদ্যুতের তার মেঝেতে পড়ে ছিল। রাইসা ও নাফিস সেখানে গেলে বিদ্যুতের ছেঁড়া তারের স্পর্শে রাইসা ঘটনাস্থলেই মারা যায়। আহত হয় নাফিজ। উল্লাপাড়া মডেল থানার ডিউটি অফিসার উপ-পরিদর্শক মোঃ শহিদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।
স্পর্শে শিশুর মৃত্যু বিদ্যুৎ উল্লাপাড়ায়
ব্যর্থ হয়ে প্রাণ দিয়ে প্রেমের সমাপ্তি

গুরুদাসপুর (নাটোর). প্রেমিকার সাথে নিহত রঞ্জু আহমেদ।-ছবি ফেসবুক থেকে নেওয়া।

Image
ফেসবুক লাইভে এসে গলায় ফাঁসি নিয়ে আত্মহত্যা করেছে রঞ্জু আহমেদ (১৫) নামের এক স্কুল শিক্ষার্থী। স্কুল পড়ুয়া এক মেয়ের প্রেমে ব্যর্থ হয়ে নিজের শয়নঘরে রশিতে ঝুলে আত্মহনন করে সে। গুরুদাসপুরের মশিন্দা ইউনিয়নের কাছিকাটা গ্রামে রোববার দিবাগত মধ্যরাতে ওই আত্মহত্যার ঘটনা ঘটে। পরিবারের লোকজন টের পেয়ে দরজা ভেঙ্গে রঞ্জুর লাশ উদ্ধার করে। আইনি প্রক্রিয়া শেষে গতকাল সোমবার সকালে রঞ্জুর লাশটি পরিবারের কাছে হস্তান্তর করে পুলিশ। ইংরেজিতে লেখা ‘রঞ্জু আহমেদ’ নামের ফেসবুক আইডির লাইভে দেখা যায়- স্কুল ছাত্র রঞ্জু লাইভে আসার পর ঘরের চালার সাথে ঝুলানো রশিতে ঝুলে যায়। রশিতে ঝোলার কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে রঞ্জু হাত-পা নাড়া দিয়ে বাঁচার চেষ্টা করে। এরপর ৩ মিনিটের মাথায় সে মারা যায়। এসময় তার ফেসবুক বন্ধুরা লাইভের কমেন্টে আত্মহত্যা না করার জন্য অনুরোধ জানান। কেউ কেউ তার পরিবারের কাছে বিষয়টি জানানোর জন্য বলেন। আত্মহত্যার আগে রঞ্জু তার ফেসবুক আইডিতে পর পর কয়েকটি স্ট্যাটাস দেন। মৃত্যুর চারদিন আগে দেওয়া একটি স্ট্যাটাসে লেখেন, ‘ছেড়ে যাওয়ার কোনো কারণ ছিলনা, তবে থেকে যাওয়ার জন্য যতেষ্ট কারণ ছিল, তাও তুমি থাকলে না।’ ৬ দিন আগের একটি স্ট্যাটাসে লেখেন, দোয়া করি প্রিয়! ভালোবাসার মানুষটাকে না পাওয়ার অসুখটা তোমার না হোক।’ এছাড়া মৃত্যুর আগে ফেসবুকে দেওয়া স্ট্যাটাসে তিনি লেখেন- ‘সবাই ভালো থেকো আমিও ভালো থাকবো ওপারে’, মৃত্যু-হ্যাস ট্যাগ দিয়ে লেখেন, ‘শেষ আয়োজন! এবং শেষ ঠিকানা! কখন জানি মৃত্যু এসে বলবে, চলো এবার যাওয়া যাক, জিন্দা থাকলে নিন্দাতো হবেই, সাদা কাপড়ে জড়িয়ে গেলে ভালোবাসার মানুষের অভাব হয়না। সময় যখন থমকে যাবে শেষ হবে সফর! বিদায় দেবে বন্ধু-স্বজন, স্বাগত জানাবে পরপার।’ আরেকটি স্ট্যাটাসে লেখেন, ‘ সরি বাবা কত কষ্ট দিয়েছি আপনাকে, হয়তো আমাকে নিয়ে আপনার অনেক স্বপ্ন ছিল।’ এদিকে রঞ্জু আহমেদের ফেসবুক আইডি ঘেঁটে দেখা গেছে, ফেসবুক আইডির প্রফাইল ছবিতে রঞ্জুর সাথে একই গ্রামের স্কুল পড়ুয়া একটি মেয়ের যৌথ ছবি পোস্ট করা আছে। নিহত রঞ্জুর চাচাতো ভাই সোহেল রানা বলেন, এই প্রেমের বিষয়ে রঞ্জু বেশ কিছুদিন ধরেই বিষন্নতায় ভুঘছিল। তার চলাচল উদাসিন মনে হচ্ছিল। কিন্তু কেউ বুঝতে পারেনি সে আত্মহত্যার পথ বেছে নেমে। তবে রঞ্জুর পরিবার প্রেমের কারণে আত্মহত্যার ব্যপারে কোনো মেয়েকে দায়ি করেননি। গুরুদাসপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আব্দুল মতিন জানান, আত্মহত্যাকারী রঞ্জুর ঘর থেকে রক্তমাখা গোলাপসহ একটি ডায়েরি উদ্ধার করা হয়েছে। এঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে।
নাটোর গুরুদাসপুর আত্মহত্যা মৃত্যু
টেকনাফে দুই অপহরণকারী আটক

দুই অপহরণকারী আটক

Image
টেকনাফের বৈদ্যঘোনা এলাকার গহীন পাহাড় থেকে অপহরণের শিকার তিনজনকে উদ্ধার করেছে র‌্যাব, একই সাথে অপহরণকারী চক্রের দুই সদস্যকে আটক করেছে র‍্যাব-১৫ এর সদস্যরা। সোমবার সকালে র‌্যাব ১৫ এর সহকারী পুলিশ সুপার (ল’এন্ড মিডিয়া) শামসুল আলম খান স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য নিশ্চিত করে জানান, রবিবার বিকেলে টেকনাফের বৈদ্যঘোনা নতুন পল্লান পাড়া গভীর পাহাড়ী এলাকা হতে তাদের উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃতরা হলেন আমান উল্লাহ (১৯), সিরাজুল মোবিন (১৮), আবু তাহের (২৭)। আটককৃতরা হলেন নবী হোসেন (২৭),জাহিদ হোসেন প্রঃ কাবিলা (২২)। তিনি জানান ২৫ মার্চ আমান উল্লাহ (১৯) ও তার বন্ধু সিরাজুল মোবিন (১৮) ফজরের নামাজের উদ্দেশ্যে বের হলে হোয়াইক্যং ইউনিয়নের উলুবুনিয়া রাস্তায় পৌঁছালে তাদের অপহরণ করে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় আমান উল্লাহ’র পিতা ঠান্ডা মিয়া বাদি হয়ে র‌্যাব- ১৫, কক্সবাজার এর সিপিসি-১ টেকনাফ ক্যাম্পে অভিযোগ দায়ের করলে তথ্য প্রযুক্তির সহয়তায় টেকনাফের একটি মাদ্রাসার সামনে হতে অপহরণকারীর চক্রের মূলহোতাসহ দুইজন কে আটক করা হয়। তিনি আরও জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটককৃতরা অপহরণের কথা স্বীকার করে এবং তাদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে দুইজনকে উদ্ধার করা হয়। এর আগে ২৫ মার্চ উখিয়ার কুতুপালং হতে অপহৃত হওয়া অপর একজনকে উদ্ধার করা হয়। এসময় অপহরণকারীদের থেকে ০২টি রাম দা, ২৫ ফুট শিকল, ০৮টি তালা, ০২টি চাবির ছড়া সহ ০৩ টি মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত অপহৃতদের পরিবারের কাছে হস্তান্তর ও আটককৃত আসামিদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের নিমিত্তে টেকনাফ মডেল থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে বলে জানান র‌্যাবের এই কর্মকর্তা।
আট অপহরণকারী দুই টেকনাফে
এমপিও ভূক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণের দাবিতে মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান

জাতীয়করণের দাবীতে মানববন্ধন কর্মসূচি ও স্মারকলিপি প্রদান

Image
মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করন করার দাবীতে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে নওগাঁর বদলগাছীতে মানববন্ধন করেছে এমপিওভুক্ত বদলগাছী বেসরকারী কলেজ স্কুল মাদ্রাসা শিক্ষক সমিতি বদলগাছী শাখা। সোমবার (২৭ মার্চ) সকাল ১১ টায় জেলার বদলগাছী উপজেলা গেইট সংলগ্ন মেইন রোডে ঘন্টাব্যাপী এ মানববন্ধন চলে। মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনটির বদলগাছী কলেজ স্কুল মাদ্রাসা শাখার সভাপতি মো শহিদুল ইসলাম। মির্জাপুর কে সি উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মো নজিবর রহমান এর সঞ্চালনায় মানববন্ধনে উপজেলার বিভিন্ন বেসরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রায় ৫ শতাধিক শিক্ষক-কর্মচারী অংশগ্রহণ করে। মানববন্ধনে এসময় অন্যান্যদের মধ্যে বদলগাছী লাবন্য প্রভা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক মো নাজমুল হক,দাউদপুর মাদ্রাসার সহকারী শিক্ষক আব্দুল আওয়াল, মাদ্রাসার সহকারী শিক্ষক মো শরিফুল ইসলাম ,গাবনা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবুল কালাম আজাদ , ভাতসাইল দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গোলাম কিবরিয়া, গোড়শাহী জুনিয়র হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক মো মেহেদী হাসান,এবং মাহবুবর রহমান বাবু প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন। বক্তরা বলেন, আমাদের যে বেতন তাতে দিন চারশো টাকা পরে, অথচ একজন শ্রমিক দিনে ৫০০ টাকা আয় করেন। সরকারী বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও আমরা একই কাজ করি অথচ বেতনে অনেক বৈষম্য। একই দেশে এতো পার্থক্য মেনে নেওয়া সম্ভব নয়। যদি সরকার দ্রুত আমাদের দাবি মেনে না নেন তাহলে আগামীতে আরও কঠোর কর্মসূচি প্রদান করা হবে। বৈষম্য দূরীকরণ, শিক্ষকদের ন্যায্য দাবি মেনে নেওয়া এবং সকল বেসরকারি মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে জাতীয়করণের দাবি জানান তারা। মানববন্ধন শেষে বদলগাছী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোসা: আলপনা ইয়াসমিন এর নিকট একটি স্বারকলিপি প্রদান করেন বদলগাছী বেসরকারী কলেজ স্কুল মাদ্রাসা শিক্ষক সমিতি।
স্মারকলিপি কর্মসূচি মানববন্ধন জাতীয়করণ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিও ভূক্ত