Login





Register

muktoprovat
English Edition
Image

সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলা বিএনপির কার্যকারী কমিটির সদস্য মো. জহুরুল ইসলাম তাঁর স্বীয় পদ থেকে স্বেচ্ছায় অব্যাহতি চেয়েছেন।

গত ১৫ নভেম্বর তাড়াশ উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বোবার লিখিত পত্রটি ডাকযোগে পাঠিয়েছেন।  

বৃহস্পতিবার (১৬ নভেম্বর) সকালে তাঁর নিজ বাস ভবনে পদত্যাগপত্রের বিষয়টি স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মীদের কাছে প্রকাশ করেন। এ সময় সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ভবিষ্যতে আর বিএনপির রাজনীতি করবেন না বলেও জানান তিনি।

জহুরুল ইসলাম উপজেলার তালম ইউনিয়নের চককলামুলা গ্রামের মৃত আলীমদ্দিনের ছেলে।  

অপর দিকে একই ইউনিয়নের বিএনপির কর্মী ও কুন্দাশন গ্রামের মো. ময়দান আলীর ছেলে সাইফুল ইসলামও বিএনপির কর্মী পদ থেকে অব্যাহতি চেয়ে লিখিত পত্রটি ডাকযোগে উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বরবার পাঠিয়েছেন।  

পদত্যাগপত্রের প্রসঙ্গে জহুরুল ইসলাম জানান, ‘তাড়াশ উপজেলার বিএনপির কার্যকারী কমিটিতে ৮৯ নম্বর সদস্য হিসেবে আমার নাম দেওয়া আছে। যাহা আমি অবগত নই এবং আমি এ পদ গ্রহণ করি নাই।

যেহেতু আমি নাটোর জেলার সিংড়া উপজেলার অন্তগত ১নং সুকাশ ইউনিয়নের নিশ্চিন্তপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে ২০১০ সালে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এমপি মহদোয়ের মনোনিত প্রার্থী হিসেবে নিয়োগ পেয়ে প্রধান শিক্ষিক পদে কর্মরত আছি।

এছাড়াও আমি প্রজাতন্ত্রের কর্মচারী হিসেবে সকল কর্মকাণ্ডে অংশীদায়িত্ব পালন করে আসছি। এমতাবস্থায় আমি তাড়াশ উপজেলা বিএনপির কার্যকারী কমিটির সদস্য পদ থেকে স্বেচ্ছায় অব্যাহতি পত্রটি ডাকযোগে তাড়াশ উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের কাছে পাঠিয়েছি’।

এ প্রসঙ্গে তাড়াশ উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক আমিনুর রহমান টুটুল বলেন, জহুরুল উপজেলা বিএনপির কার্যকারী কমিটির সদস্য ছিলেন। তিনি বরাবরই সুবিধাবাদী। তবে আমরা এখনও পর্যন্ত তাঁদের পত্রটি হাতে পায়নি। পেলে দলীয় ফোরামে আলোচনা করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।